Humayun Ahmed Quotes (হুমায়ুন আহমেদ বানী/উক্তি) - Popular Quotes

Humayun Ahmed Quotes - hunayun ahmed was most popular writer and filmmaker. He wrote many novels in his life. Humayun Ahmed describes girl's and woman's mind with his mind-blowing writing. Here is some Quotes of Humayun Ahamed in Bengali language from his writing about girl's and women's mind, love and philosophy.
Humayun Ahmed Quotes (হুমায়ুন আহমেদ বানী/উক্তি) - Popular Quotes
হুমায়ুন আহমেদ এর বানী গুলো খুব-ই জনপ্রিয়। তাই আমরা আপনাদের জন্য কিছু হুমায়ুন আহমেদ এর বানী নিয়ে এলাম। 

“যখন মানুষের খুব প্রিয় কেউ তাকে অপছন্দ, অবহেলা কিংবা ঘৃণা করে তখন প্রথম প্রথম মানুষ খুব কষ্ট পায় এবং চায় যে সব ঠিক হয়ে যাক । কিছুদিন পর সে সেই প্রিয় ব্যক্তিকে ছাড়া থাকতে শিখে যায়। আর অনেকদিন পরে সে আগের চেয়েও অনেকবেশী খুশি থাকে যখন সে বুঝতে পারে যে কারো ভালবাসায় জীবনে অনেক কিছুই আসে যায় কিন্তু কারো অবহেলায় সত্যিই কিছু আসে যায় না।”― Humayun Ahmed
“যুদ্ধ এবং প্রেমে কোনো কিছু পরিকল্পনা মতো হয় না” -Humayun Ahmed
“মিথ্যা হলো শয়তানের বিয়ের মন্ত্র। মিথ্যা বললেই শয়তানের বিয়ে হয়। বিয়ে হওয়া মানেই সন্তান-সন্ততি হওয়া। একটা মিথ্যার পর আরো অনেকগুলি মিথ্যা বলতে হয় এই কারণেই।পরের মিথ্যাগুলি শয়তানের সন্তান।” ― Humayun Ahmed, এই মেঘ, রৌদ্রছায়া
“ভালবাসার মানুষের সাথে বিয়ে না হওয়াটাই বোধ হয় ভাল।বিয়ে হলে মানুষটা থাকে ভালবাসা থাকে না।আর যদি বিয়ে না হয় তাহলে হয়ত বা ভালবাসাটা থাকে,শুধু মানুষটাই থাকে না। মানুষ এবং ভালবাসা এই দুয়ের মধ্যে ভালবাসাই হয়ত বেশি প্রিয়।” ― Humayun Ahmed, কোথাও কেউ নেই
“ভালবাসাবাসির ব্যাপারটা হাততালির মতো, দুটা হাত লাগে । এক হাতে তালি বাজে না, অর্থাৎ একজনের ভালবাসায় হয় না” -Humayun Ahmed
“হাসি সবসময় সুখের কারণ বোঝায় না, মাঝে মাঝে এটাও বোঝায় যে আপনি কতটা বেদনা লুকাতে পারেন” -Humayun Ahmed
“যে মানব সন্তান ক্ষুদ্র কামনা জয় করতে পারে সে বৃহৎ কামনাও জয় করতে পারে।” ― Humayun Ahmed, দরজার ওপাশে
“সবাই তোমাকে কষ্ট দেবে, কিন্ত তোমাকে এমন একজনকে খুঁজে নিতে হবে যার দেওয়া কষ্ট তুমি সহ্য করতে পারবে” -Humayun Ahmed
“মানুষের স্বভাব হলো, কেউ যখন ভালোবাসে তখন নানান কর্মকাণ্ড করে সেই ভালোবাসা বাড়িয়ে দিতে ইচ্ছে করে, আবার কেউ যখন রেগে যায় তখন তার রাগটাও বাড়িয়ে দিতে ইচ্ছা করে।” ― Humayun Ahmed, আঙুল কাটা জগলু
“যখন মানুষের খুব প্রিয় কেউ তাকে অপছন্দ, অবহেলা কিংবা ঘৃণা করে তখন প্রথম প্রথম মানুষ খুব কষ্ট পায় এবং চায় যে সব ঠিক হয়ে যাক । কিছুদিন পর সে সেই প্রিয় ব্যক্তিকে ছাড়া থাকতে শিখে যায়। আর অনেকদিন পরে সে আগের চেয়েও অনেকবেশী খুশি থাকে যখন সে বুঝতে পারে যে কারো ভালোবাসায় জীবনে অনেক কিছুই আসে যায় কিন্তু কারো অবহেলায় সত্যিই কিছু আসে যায় না” -Humayun Ahmed
“অধিকাংশ মানুষ কল্পনায় সুন্দর অথবা সুন্দর দূর থেকে । কাছে এলেই আকর্ষণ কমে যায় । মানুষও একই । কারো সম্পর্কে যত কম জানা যায়, সে তত ভালো মানুষ” -Humayun Ahmed
“কেও কারও মত হতে পারে না। সবাই হয় তার নিজের মত। তুমি হাজার চেষ্টা করেও তোমার চাচার বা বাবার মত হতে পারবে না। সব মানুষই আলাদা।” ― Humayun Ahmed, অপেক্ষা
“I love you যত সহজে বলা যায়- "আমি তোমাকে ভালোবাসি" ততো সহজে বলা যায় না।” ― Humayun Ahmed, কবি
“দিতে পার একশ' ফানুস এনে আজন্ম সলজ্জ সাধ, একদিন আকাশে কিছু ফানুস উড়াই।” ― Humayun Ahmed, শঙ্খনীল কারাগার
“হাসিতে খুব সহজেই মানুষকে চেনা যায় ।সব মানুষ একই ভঙ্গিতে কাঁদে কিন্তু হাসার সময় একেক জন একেক রকম করে হাসে” ― Humayun Ahmed, ময়ূরাক্ষী
“প্রেমে পড়া মানে নির্ভরশীল হয়ে পড়া। তুমি যার প্রেমে পড়বে সে তোমার জগতের একটা বিরাট অংশ দখল করে নেবে। যদি কোনো কারণে সে তোমাকে ছেড়ে চলে যায় তবে সে তোমার জগতের ঐ বিরাট অংশটাও নিয়ে যাবে। তুমি হয়ে পড়বে শূণ্য জগতের বাসিন্দা” ― Humayun Ahmed
“বাস্তবতা এতই কঠিন যে কখনও কখনও বুকের ভিতর গড়ে তোলা বিন্দু বিন্দু ভালোবাসাও অসহায় হয়ে পড়ে” -Humayun Ahmed
“অল্প কয়দিনের জন্য আমরা এই পৃথিবীতে এসেছি। এখানে আমরা সবাই নফর মুনিব কেউ না” -Humayun Ahmed
“সরাসরি চোখের দিকে তাকিয়ে কেউ মিথ্যা বলতে পারে না, মিথ্যা বলতে হয় অন্যদিকে তাকিয়ে” -Humayun Ahmed
“মানব জাতির স্বভাব হচ্ছে সে সত্যের চেয়ে মিথ্যার আশ্রয় নিরাপদ মনে করা” -Humayun Ahmed
“ভালোবাসা আর ঘৃণা আসলে একই জিনিস। একটি মুদ্রার এক পিঠে "ভালোবাসা" আরেক পিঠে লেখা ঘৃণা। প্রেমিক প্রেমিকার সামনে এই মুদ্রা মেঝেতে ঘুরতে থাকে। যাদের প্রেম যতো গভীর তাদের মুদ্রার ঘূর্ণন ততো বেশি। এক সময় ঘূর্ণন থেমে যায় মুদ্রা ধপ করে পড়ে যায়। তখন কারো কারোর ক্ষেত্রে দেখা যায় "ভালোবাসা" লেখা পিঠটা বের হয়েছে, কারো কারো ক্ষেত্রে ঘৃণা বের হয়েছে। কাজেই এই মুদ্রাটি যেন সবসময় ঘুরতে থাকে সেই ব্যবস্থা করতে হবে। ঘূর্ণন কখনো থামানো যাবে না।” ― Humayun Ahmed, দাঁড়কাকের সংসার কিংবা মাঝে মাঝে তব দেখা পাই
“বড় বোকামিগুলি বুদ্ধিমান মানুষরাই করে।” ― Humayun Ahmed, আঙুল কাটা জগলু
“কখনো কখনো তোমার মুখটা বন্ধ রাখতে হবে । গর্বিত মাথাটা নত করতে হবে এবং স্বীকার করে নিতে হবে যে তুমি ভুল । এর অর্থ তুমি পরাজিত নও, এর অর্থ তুমি পরিণত এবং শেষ বেলায় জয়ের হাসিটা হাসার জন্য ত্যাগ স্বীকারে দৃঢ় প্রতিজ্ঞ” -Humayun Ahmed
“ভদ্র ছেলেদের জন্য মেয়েদের মনে কখনও প্রেম জাগে না, যা জাগে সেটা হল সহানুভূতি” -Humayun Ahmed
“বিবাহ এবং মৃত্যু এই দুই বিশেষ দিনে লতা-পাতা আত্মীয়দের দেখা যায়। সামাজিক মেলামেশা হয়। আন্তরিক আলাপ আলোচনা হয়।” ― Humayun Ahmed, একজন হিমু কয়েকটি ঝিঁ ঝিঁ পোকা
“অতিরিক্ত সুন্দর মেয়েদের কথা সহজে বিস্বাস করতে নেই, তাদের কথার শতকরা ৯০ ভাগই থাকে ছলনা” -Humayun Ahmed
“মানুষ ট্রেইনের মত এক লাইনে চলে, তবে বিশেষ ঘটনার পর নতুন লাইন পাওয়া যায়” -Humayun Ahmed
“দিনকাল পাল্টে গেছে, এখন আর মানুষ আগের মতো নাই।মওলানা ধরনের মানুষের দিকে এখন আর আগের মতো ভয়-মিশ্রিত শ্রদ্ধার চোখে কেউ তাকায় না। মওলানাও যে বিবেচনায় রাখার মতো একজন, কেউ তাও বোধহয় মনে করে না। ছল্টুফল্টু ভাবে।” ― Humayun Ahmed, এই মেঘ, রৌদ্রছায়া
“যে ভালোবাসা না চাইতে পাওয়া যায়, তার প্রতি কোনো মোহ থাকে না” ― Humayun Ahmed
“গল্প-উপন্যাস হলো অল্পবয়েসী মেয়েদের মাথা খারাপের মন্ত্র।” ― Humayun Ahmed, দেয়াল
“পৃথিবীতে অসংখ্য খারাপ মানুষ আছে, কিন্তু একজনও খারাপ বাবা নেই।” ― Humayun Ahmed
“যে মানুষটিকে তুমি দেখছো তাকেই যদি ভালো না বাসতে পারো, তবে তুমি কিভাবে ঈশ্বরকে ভালোবাসবে যাকে তুমি কোনদিন দেখোই নি?” -Humayun Ahmed
“ভালোবাসা ও ঘৃনা দুটাই মানুষের চোখে লেখা থাকে” -Humayun Ahmed
“বেশিরভাগ রূপবতী মেয়ে নকল হাসি হাসে। হাসার সময় ঢং করার চেষ্টা করে। তাদের হাসি হায়েনার হাসির মতো হয়ে যায়।” ― Humayun Ahmed, দিঘির জলে কার ছায়া গো
“চাঁদের বিশালতা মানুষের মাঝেও আছে | চাঁদ এক জীবনে বারবার ফিরে আসে, ঠিক তেমন মানুষ প্রিয় বা অপ্রিয় যেই হোক একবার চলে গেলে আবার ফিরে আসে” -Humayun Ahmed
“মানুষের পছন্দ অপছন্দ দিয়েতো দুনিয়া চলে না, দুনিয়া চলবে তার নিজের পছন্দে” -Humayun Ahmed
“পৃথিবীতে অসংখ্য খারাপ মানুষ আছে, কিন্তু একজনও খারাপ বাবা নেই” -Humayun Ahmed
“কিছু কিছু পুরুষ আছে যারা রূপবতী তরুণীদের অগ্রাহ্য করে একধরনের আনন্দ পায় । সচরাচর এরা নিঃসঙ্গ ধরনের পুরুষ হয় এবং নারী সঙ্গের জন্যে তীব্র বাসনা বুকে পুষে রাখে” -Humayun Ahmed
“কিছু কিছু ব্যাক্তিগত দুঃখ আছে, যা স্পর্শ করার অধিকার কারোরই নেই।” ― Humayun Ahmed
“চট করে কারো প্রেমে পড়ে যাওয়া কাজের কথা না। অতি রূপবতীদের কারও প্রেমে পড়তে নেই। অন্যেরা তাদের প্রেমে পড়বে, তা-ই নিয়ম।” ― Humayun Ahmed, দেয়াল
“মেয়েদের স্বভাবই হচ্ছে হালকা জিনিস নিয়ে মাতামাতি করা” -Humayun Ahmed
“মানব জীবন হলো অপেক্ষার জীবন” -Humayun Ahmed
“দরিদ্র পুরুষদের প্রতি মেয়েদের একপ্রকার মায়া জন্মে যায়,আর এই মায়া থেকে জন্মায় ভালোবাসা” -Humayun Ahmed
“পৃথিবীতে আনন্দ এবং দুঃখ সব সময় থাকবে সমান সমান, বিজ্ঞানের ভাষায় যাকে বলে আনন্দের সংরক্ষণশীলতা । একজন কেউ চরম আনন্দ পেলে, অন্য জনকে চরম দুঃখ পেতে হবে” -Humayun Ahmed
“আলোটুকু তোমায় দিলাম। ছায়া থাক আমার কাছে।” ― Humayun Ahmed, বহুব্রীহি
“বিপদ যখন আসে একটার পর একটা আসে। বিপদরা পাঁচ ভাইবোন। এদের মধ্যে খুব মিল। এই ভাইবোনরা কখনো একা কারো কাছে যায় না। প্রথম একজন যায়, তারপর তার অন্য ভাইবোনরা উপস্থিত হয়।” ― Humayun Ahmed, এই মেঘ, রৌদ্রছায়া
“বন্ধুত্ব তখনই গম্ভীর হয় যখন কেউ কাউকে চেনে না” -Humayun Ahmed
“মেয়েরা গোছানো মানুষ পছন্দ করে না, মেয়েরা পছন্দ করে অগোছালো মানুষ” -Humayun Ahmed
“একজন কাছের মানুষ আরেকজন কাছের মানুষকে তখনি ভয় করে যখন সে তাকে বুঝতে পারে না” -Humayun Ahmed
“ভালবাসাবাসির জন্যে অনন্তকালের প্রয়োজন নেই, একটি মুহূর্তই যথেষ্ট” -Humayun Ahmed
“জানালার ওপাশের অন্ধকার থেকে আমার সঙ্গীরা আমায় ডাকে। একদিন যাদের সঙ্গ পেয়ে আজ নিঃসঙ্গতায় ডুবছি।” ― Humayun Ahmed, শঙ্খনীল কারাগার
“জোছনা দেখতে দেখতে, আমার হটাৎ মনে হলো, প্রকৃতির কাছে কিছু চাইতে নেই, কারণ প্রকৃতি মানুষের কোনো ইচ্ছাই অপূর্ণ রাখে না.” ― Humayun Ahmed, দরজার ওপাশে
“কঠিন মানসিক যন্ত্রণায় কাউকে দগ্ধ করার আনন্দের কাছে সব আনন্দই ফিকে।” ― Humayun Ahmed, ময়ূরাক্ষী
“পৃথিবীতে আসার সময় প্রতিটি মানুষই একটি করে আলাদিনের প্রদীপ নিয়ে আসে, কিন্তু খুব কম মানুষই সেই প্রদীপ থেকে ঘুমন্ত দৈত্যকে জাগাতে পারে” -Humayun Ahmed
“তরুণী মেয়েদের হঠাৎ আসা আবেগ হঠাৎ চলে যায়, আবেগকে বাতাস না দিলেই হলো । আবেগ বায়বীয় ব্যাপার, বাতাস পেলেই তা বাড়ে অন্য কিছুতে বাড়ে না” -Humayun Ahmed
“হুট করে প্রেম হয় কনজারভেটিভ পরিবার গুলোতে । ঐ সব পরিবারের মেয়েরা পুরুষদের সঙ্গে মিশতে পারে না, হঠাৎ যদি সুযোগ ঘটে যায় তাহলেই বড়শিতে আটকে গেল” -Humayun Ahmed
“যখন মানুষের খুব প্রিয় কেউ তাকে অপছন্দ, অবহেলা কিংবা ঘৃণা করে তখন প্রথম প্রথম মানুষ খুব কষ্ট পায় এবং চায় যে সব ঠিক হয়ে যাক । কিছুদিন পর সে সেই প্রিয় ব্যক্তিকে ছাড়া থাকতে শিখে যায়। আর অনেকদিন পরে সে আগের চেয়েও অনেকবেশী খুশি থাকে যখন সে বুঝতে পারে যে কারো ভালবাসায় জীবনে অনেক কিছুই আসে যায় কিন্তু কারো অবহেলায় সত্যিই কিছু আসে যায় না।” ― Humayun Ahmed
“সব পাখি জোড়ায় জোড়ায় ওড়ে। পক্ষীকুলে শুধুমাত্র চিলকেই নিঃসঙ্গ উড়তে দেখা যায় । নিঃসঙ্গতার আনন্দের সাথে এই পাখিটার হয়তো বা পরিচয় আছে” -Humayun Ahmed
“ভালবাসার মানুষের সাথে বিয়ে না হওয়াটাই বোধ হয় ভাল।বিয়ে হলে মানুষটা থাকে ভালবাসা থাকে না।আর যদি বিয়ে না হয় তাহলে হয়ত বা ভালবাসাটা থাকে,শুধু মানুষটাই থাকে না। মানুষ এবং ভালবাসা এই দুয়ের মধ্যে ভালবাসাই হয়ত বেশি প্রিয়।” ― Humayun Ahmed, কোথাও কেউ নেই
“যে মানব সন্তান ক্ষুদ্র কামনা জয় করতে পারে সে বৃহৎ কামনাও জয় করতে পারে।” ― Humayun Ahmed, দরজার ওপাশে
“একজন মানুষকে সত্যিকারভাবে জানার উপায় হচ্ছে তার স্বপ্নটা জানা” -Humayun Ahmed
“আমি কখনো অতিরিক্ত কিছুদিন বাঁচার জন্য সিগারেটের আনন্দ ছাড়ার জন্য প্রস্তুত ছিলাম না। আমি ভেবে রেখেছিলাম ডাক্তারকে বলব, আমি একজন লেখক। নিকোটিনের বিষে আমার শরীরের প্রতিটি কোষ অভ্যস্ত। তোমরা আমার চিকিৎসা করো, কিন্তু আমি সিগারেট ছাড়ব না। তাহলে কেন ছাড়লাম? পুত্র নিনিত হামাগুড়ি থেকে হাঁটা শিখেছে। বিষয়টা পুরোপুরি রপ্ত করতে পারেনি। দু-এক পা হেঁটেই ধুম করে পড়ে যায়। ব্যথা পেয়ে কাঁদে। একদিন বসে আছি। টিভিতে খবর দেখছি। হঠাৎ চোখ গেল নিনিতের দিকে। সে হামাগুড়ি পজিশন থেকে উঠে দাঁড়িয়েছে। হেঁটে হেঁটে এগিয়ে আসছে আমার দিকে। তার ছোট্ট শরীর টলমল করছে। যেকোনো সময় পড়ে যাবে এমন অবস্থা। আমি ডান হাত তার দিকে বাড়িয়ে দিতেই সে হাঁটা বাদ দিয়ে দৌড়ে হাতের ওপর ঝাঁপিয়ে পড়ে বিশ্বজয়ের ভঙ্গিতে হাসল। তখনই মনে হলো, এই ছেলেটির সঙ্গে আরও কিছুদিন আমার থাকা উচিত। সিগারেট ছাড়ার সিদ্ধান্ত সেই মুহূর্তেই নিয়ে নিলাম।” ― Humayun Ahmed
“কিছু কিছু মানুষ ভাগ্যকে নিজের হাতে গড়ে, আবার কারো কারো কাছে ভাগ্য আপনি এসে ধরা দেয়” -Humayun Ahmed
“শিকল দিয়ে কাউকেই বেঁধে রাখা হয় না । তারপরেও সব মানুষই কোনও - না - কোনও সময় অনুভব করে তার হাত - পায়ে কঠিন শিকল । শিকল ভাঙতে গিয়ে সংসার - বিরাগী গভীর রাতে গৃহত্যাগ করে । ভাবে ,মুক্তি পাওয়া গেল । দশতলা বাড়ির ছাদ থেকে গৃহী মানুষ লাফিয়ে পরে ফুটপাতে । এরা ক্ষণিকের জন্য শিকল ভাঙার তৃপ্তি পায় ।” ― Humayun Ahmed, মৃন্ময়ী
“জীবনে কুসিৎত সব ব্যাপারগুলি সহজভাবে ঘটে যায় । অপরূপ রূপবতী একটা মেয়েও হাসতে হাসতে কঠিন কঠিন কথা বলে” -Humayun Ahmed
“কেও কারও মত হতে পারে না। সবাই হয় তার নিজের মত। তুমি হাজার চেষ্টা করেও তোমার চাচার বা বাবার মত হতে পারবে না। সব মানুষই আলাদা।” ― Humayun Ahmed, অপেক্ষা
“চট করে কারো প্রেমে পড়ে যাওয়া কাজের কথা না” -Humayun Ahmed
“মেয়েদের অনেক গুণের মধ্যে বড় গুণ হলো এরা খুব সুন্দর করে চিঠি লিখতে পারে। কথাবার্তায় নিতান্ত এলোমেলো মেয়েও চিঠি লেখায় গোছানো। মেয়েদের চিঠিতে আরেকটা ব্যাপার থাকে - বিষাদময়তা। নিতান্ত আনন্দের সংবাদ দিয়ে লেখা চিঠির মধ্যেও তারা জানি কী করে সামান্য হলেও দুঃখ মিশিয়ে দেয়। কাজটা যে তারা ইচ্ছা করে করে তা না। প্রকৃতি তাদের চরিত্রে যে বিষাদময়তা দিয়ে রেখেছে তাই হয়তো চিঠিতে উঠে আসে।” ― Humayun Ahmed, সে আসে ধীরে
“লাজুক ধরনের মানুষ বেশীর ভাগ সময়ই মনের কথা বলতে পারেনা, মনের কথা হড়বড় করে বলতে পারে শুধু মাত্র পাগলরাই । পাগলরা মনে হয় সেই কারণেই সুখী” -Humayun Ahmed
“ভালোবাসা আর ঘৃণা আসলে একই জিনিস। একটি মুদ্রার এক পিঠে "ভালোবাসা" আরেক পিঠে লেখা ঘৃণা। প্রেমিক প্রেমিকার সামনে এই মুদ্রা মেঝেতে ঘুরতে থাকে। যাদের প্রেম যতো গভীর তাদের মুদ্রার ঘূর্ণন ততো বেশি। এক সময় ঘূর্ণন থেমে যায় মুদ্রা ধপ করে পড়ে যায়। তখন কারো কারোর ক্ষেত্রে দেখা যায় "ভালোবাসা" লেখা পিঠটা বের হয়েছে, কারো কারো ক্ষেত্রে ঘৃণা বের হয়েছে। কাজেই এই মুদ্রাটি যেন সবসময় ঘুরতে থাকে সেই ব্যবস্থা করতে হবে। ঘূর্ণন কখনো থামানো যাবে না।” ― Humayun Ahmed, দাঁড়কাকের সংসার কিংবা মাঝে মাঝে তব দেখা পাই
“মানুষের মন বিচিত্র জিনিস, সমস্ত নক্ষত্রপূঞ্জে যে জটিলতা ও রহস্য তার থেকেও রহস্যময় মানুষের মন” -Humayun Ahmed
“সব গ্রেটম্যানরাই কোনো না কোনো সময়ে বাড়ি থেকে পালিয়েছেন, একমাত্র ব্যতিক্রম রবি ঠাকুর” -Humayun Ahmed
“দিনকাল পাল্টে গেছে, এখন আর মানুষ আগের মতো নাই।মওলানা ধরনের মানুষের দিকে এখন আর আগের মতো ভয়-মিশ্রিত শ্রদ্ধার চোখে কেউ তাকায় না। মওলানাও যে বিবেচনায় রাখার মতো একজন, কেউ তাও বোধহয় মনে করে না। ছল্টুফল্টু ভাবে।” ― Humayun Ahmed, এই মেঘ, রৌদ্রছায়া
“প্রকৃতি মাঝে মাঝে মানুষকে এমন বিপদে ফেলে । চোখে পানি আসার সিস্টেম না থাকলে জীবন যাপন হয়তো সহজ হতো” -Humayun Ahmed
“বেশিরভাগ রূপবতী মেয়ে নকল হাসি হাসে। হাসার সময় ঢং করার চেষ্টা করে। তাদের হাসি হায়েনার হাসির মতো হয়ে যায়।” ― Humayun Ahmed, দিঘির জলে কার ছায়া গো
“কিছু কিছু ব্যাক্তিগত দুঃখ আছে, যা স্পর্শ করার অধিকার কারোরই নেই।” ― Humayun Ahmed
“মানুষ মিথ্যা কথা বলে প্রয়োজনে এবং স্বার্থের কারনে” -Humayun Ahmed
“আলোটুকু তোমায় দিলাম। ছায়া থাক আমার কাছে।” ― Humayun Ahmed, বহুব্রীহি
“কিছু কিছু মানুষ সত্যি খুব অসহায়, তাদের ভালোলাগা মন্দলাগা, ব্যথা বেদনা গুলো বলার মত কেউ থাকে না । তাদের কিছু অবাক্ত কথা মনের গভীরেই রয়ে যায়, আর কিছু কিছু স্মৃতি এক সময় পরিনত হয় দীর্ঘশ্বাসে” -Humayun Ahmed
“সূরা বনি ইসরাইলে আল্লাহ্‌পাক বলেছেন - 'আমি প্রত্যেক মানুষের ভাগ্য তার গলায় হারের মত পরিয়ে দিয়েছি।' আমরা সবাই গলায় অদৃশ্য হার নিয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছি। কার হার কেমন কেউ জানে না।” ― Humayun Ahmed
“কৌতুহল আমাদের সবারই আছে কিন্ত কৌতুহল মেটানোর জন্যে প্রয়োজনীয় পরিশ্রমটি আমরা করি না, করতে চাই না” -Humayun Ahmed
“না চাইতেই যা পাওয়া যায় তা তো সব সময়ই মূল্যহীন।” ― Humayun Ahmed, অচিনপুর
“আদর্শ মানুষকে কেউ পছন্দ করে না, আদর্শ মানুষ ডিসটিল্ড ওয়াটারের মতো স্বাদহীন । সমাজ পছন্দ করে অনাদর্শ মানুষকে, যারা ডিসটিল্ড ওয়াটার নয় কোকাকোলা ও পেপসির মতো মিষ্টি কিন্তু ঝাঁঝালো” -Humayun Ahmed
“যত্ন করে কাঁদানোর জন্য খুব আপন মানুষগুলোই যথেষ্ট” -Humayun Ahmed
“কিছু মানুষ ধরেই নিয়েছে তারা যা ভাবছে তাই ঠিক, তাদের জগতটাই একমাত্র সত্যি জগত। এরা রহস্য খুঁজবে না, এরা স্বপ্ন দেখবে না” -Humayun Ahmed
“দর আইনা গরচে খুদ নুমাই বাশদ পৈবস্তা জ খেশতন জুদাই বাশদ । খুদ রা ব মিসলে গোর দীদন অজব অস্ত; ঈ বুল অজবো কারে খুদাই বাশদ।” “যদিও দর্পণে আপন চেহারা দেখা যায় কিন্তু তা পৃথক থাকে নিজে নিজেকে অন্যরুপে দেখা আশ্চর্যের ব্যাপার। এ হলো আল্লাহর অলৌকিক কাজ।” “রাজ্যহারা হয়ে হুমায়ূন হিন্দুস্থানের অধীশ্বর দিল্লীর সম্রাট শের শাহকে-” ― Humayun Ahmed
“প্রতিটা মেয়ে হয়তো তার স্বামীর কাছে রানী হয়ে থাকতে পারে না । কিন্তু প্রতিটা মেয়েই তার বাবার কাছে রাজকন্যা হয়ে থাকে” -Humayun Ahmed

আশা করি “Humayun Ahmed Quotes” পড়ে নিশ্চই অনেক কিছু সুন্দর তথ্য সম্পর্কে জানতে পেরেছেন | পোস্টটা ভালো লেগে থাকলে অবশ্যই একটু Comment করে তোমার মতামত আমাদের জানাবেন |

Comments

Popular posts from this blog

Bangla Islamic Books (বাংলা ইসলামিক বই) - With Pdf Download Links

Free Programming Books : Java and Java Script

Humayun Ahmed (হুমায়ুন আহমেদ) Books - With Pdf Download Links